Tuesday, এপ্রিল ২৩, ২০২৪

গ্রীস ৭ টি দেশের ফ্লাইট সাথে নিষেধাজ্ঞা বাড়িয়েছে, থাকছে কোয়ারেটাইনের বাধ্যবাতকতা..

ডেস্ক রিপোর্ট : গ্রীস ৭ টি দেশের ফ্লাইট সাথে নিষেধাজ্ঞা বাড়িয়েছে; এবং  নন-ইইউ নাগরিকদের ফ্লাইটেও নিষেধাজ্ঞা বেড়েছে এবং কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে যারা গ্রিসে প্রবেশ করবেন।

গ্রীসের নাগরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ সোমবার, ১লা জুন, সাতটি দেশের ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞা বাড়ানোর পাশাপাশি অ-ইউরোপীয় নাগরিকদের প্রবেশের উপরও নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়িয়েছে, একই সাথে জুনে,গ্রীসে প্রবেশকারী যাত্রীদের জন্য বাধ্যতামূলক পৃথকীকরণ (কোয়ারেন্টাইন)সময়ও বাড়ানো হয়েছে।

কি ধরনের কোয়ারেন্টাইন?

আন্তর্জাতিক গন্তব্য থেকে গ্রীসে আগত সকল জাতীয়তার যাত্রীদের জন্য বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন ৩০ শে জুন, ২০২০ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। তবে এটি দুটি পর্যায়ে বিভক্ত:

প্রথম পর্যায়:
আগামী ১৪ই জুন ২০২০ এর মধ্যরাত পর্যন্ত,বিদেশ থেকে গ্রীসে প্রবেশকারী সমস্ত যাত্রীদের(এমনকি গ্রীকরাও)কোভিড-১৯ পরীক্ষা দিতে হবে।ফলাফলটি নেতিবাচক হলে, যাত্রীদের সাত দিনের জন্য আত্ম-সংযমে(কোয়ারানটাইন থাকতে হবে।আর পরীক্ষার ফলাফল যদি ইতিবাচক হয় তবে যাত্রীদেরকে অবশ্যই ১৪দিনের জন্য বাধ্যতামূলক পৃথক পৃথক স্থানে থাকতে হবে।

দ্বিতীয় ধাপ:
পরবর্তী ধাপে সোমবার,১৫ ই জুন থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিমান পরিবহন সুরক্ষা সংস্থা (ইএএসএ) দ্বারা নির্ধারিত কোভিড -১৯ সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলি থেকে আগত যাত্রীদের জন্য বাধ্যতামূলক পরীক্ষা এবং পৃথকীকরণের অনুশীলন অব্যাহত থাকবে।অন্যান্য সমস্ত নাগরিকরা কোনও বিধিনিষেধ ছাড়াই প্রবেশ করতে পারবে, তবে আগমনের পরে কিছু সংখ্যক যাত্রীদের নমুনা পরীক্ষা হতে পারে।

কোভিড -১৯ এর কারণে নিম্নলিখিত বিভাগের যাত্রীদের সীমাবদ্ধতা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে:

* ট্রানজিট, ফ্লাইট ক্রু, স্টেট ফ্লাইটস ক্রু, স্যানিটারি ফ্লাইটস, মানবিক উড়ান, জরুরি ফ্লাইটস, মিলিটারি লাইফাইট, কার্গো ফ্লাইট এবং ফ্রন্টেক্স ফ্লাইটের যাত্রীরা।

ফ্লাইট এবং ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞাঃ

১৪ ই জুন পর্যন্ত,গ্রীসে পৌঁছানো সমস্ত আন্তর্জাতিক বিমানগুলি কেবল মাত্র এথেন্সের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে।১৫ই জুন থেকে আসা সকল ফ্লাইট এথেন্সের পাশাপাশি,থেসালোনিকি বিমানবন্দরেও অবতরণ করতে পারবে।

রবিবার, ১৪ই জুন পর্যন্ত গ্রীস সাতটি দেশের ফ্লাইটে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা বজায় রাখছে।দেশগুলি হ’ল:

ইতালি, স্পেন, নেদারল্যান্ডস, যুক্তরাজ্য, আলবেনিয়া, তুরস্ক এবং উত্তর ম্যাসেডোনিয়া।

নন-ইইউ নাগরিকদের ফ্লাইটঃ

নন-ইইউ নাগরিকদের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা আগামী ১৫ই জুন ২০২০ পর্যন্ত নবায়ন করা হয়েছে।আগামী ১৫ই জুন অবধি সকল ধরনের ফ্লাইট সমূহ উন্মুক্ত হবে।

আরো পড়ুনজর্জ ফ্লয়েড হত্যা; গ্রীসস্থ মার্কিন দূতাবাসের সামনে প্রতিবাদ,সংঘর্ষ, ককটেল বিষ্ফোরন

নিম্নলিখিত ব্যতিক্রমগুলি এই নোটের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য:

ইউরোপীয় নাগরিকদের পরিবারের সদস্য,সেনজেনভুক্ত দেশগুলির নাগরিক, স্বাস্থ্যকর্মী, তৃতীয় দেশের নাগরিক যাদের একটি ইউরোপীয় দেশ এবং শেঞ্জেন দেশে দীর্ঘমেয়াদী ভিসা রয়েছে, সরকারী কর্মকর্তা, কূটনীতিক, সামরিক কর্মীরা, ট্রানজিট মানবিক কর্মচারী, বিমান ক্রু এবং যারা ইউরোপীয় নাগরিক যারা গ্রীক কনসুলেট থেকে তাদের ভ্রমণের অনুমতি পেয়েছে।

শাহনুর রিপন – এথেন্স থেকে

ইউরোপ বাংলা

ইউরোপ বাংলা

একজন ফ্রিল্যান্স রাইটার, ব্লগার, এডুকেশনাল কনসালট্যান্ট, ক্যারিয়ার কাউন্সিলর, উদ্যোক্তা।

Related Posts

Next Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

I agree to the Terms & Conditions and Privacy Policy.

ফেসবুকে ইউরোপ বাংলা