Tuesday, এপ্রিল ২৩, ২০২৪

সাইপ্রাসে লকডাউন শিথিল, জনমনে স্বস্তির নিঃশ্বাস।

মোস্তাইন বিল্লাহ,সাইপ্রাস থেকে : রাস্ট্রপতি নিকোস আনাস্তাসিয়াদেস ৪ মে থেকে লকডাউন শিথিল করার ঘোষণা দিয়েছেন।এবং তিনি করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে ইতিপূর্বে গৃহীত পদক্ষেপসমূহ ফলপ্রসু হওয়ায় যথেস্ট সন্তোষ্টু প্রকাশ করেছেন।

বুধবার ২৯শে এপ্রিল রাত সাড়ে আটটায় রাষ্ট্রপতি নিকোস আনাস্তাসিয়াদেস লকডাউন শিথিল এবং গৃহিত পদক্ষেপ নিয়ে টেলিভিশনে দেওয়া বিশেষ এক ভাষন দেন।তিনি বলেন ৪ মে থেকে শুরু হয়ে প্রথমধাপ এবং ২১শে মে থেকে দ্বিতীয়ধাপ এ দুটি পর্যায়ে লকডাউনটি ধীরে ধীরে সহজ হবে।

৪ মে থেকে প্রথমধাপের সিদ্ধান্তগুলিঃ

অর্থনীতিঃ
১.নির্মাণ ও মেরামত এবং এ সম্পর্কীয় সকল প্রকার ব্যবসায়ের উপর কোনও বিধিনিষেধ নেই।

২.স্বাস্থ্যবিধি মেনে মল ও ডিপার্টমেন্ট স্টোর ব্যতীত সকল খুচরা দোকান পুনরায় চালু করতে পারবে।

৩.স্বাস্থ্যবিধি পূরণ শর্তে কৃষকদের বাজার,উন্মুক্ত বাজার পুনরায় চালু করা হবে।

৪.পর্যটন ও ভ্রমণ অফিস খোলা থাকবে।

সরকারিখাতঃ
১. নির্দিষ্ট তালিকা অনুসারে শারিরীকভাবে দুর্বল গোষ্ঠী ও যাদের ১৫ বছর বয়সের বাচ্চাদের দেখাশোনা করা প্রয়োজন তারা বাদে সমস্ত সরকারি কর্মচারীদের কাজে যোগদান করতে হবে। তবে কাজে না আসা উভয় গ্রুপকে বাড়িতে থেকে দায়িত্ব পালন করতে হবে।

২. সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশাবলী সাপেক্ষে আদালত পুনরায় কাজ শুরু করতে পারবে।

শিক্ষাঃ
১.মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শেষ বছর (সরকারী ও বেসরকারী) ১১ ই মে থেকে ক্লাসে যেতে পারবে।

স্বাস্থ্যসেবাঃ
১. ৪ মে থেকে স্বাস্থ্যখাতে কোন বিধীনিষেধ নেই এবং ডেন্টালসেবা দেওয়া যাবে।

স্বাধীনতাঃ
১.জনসাধারণের চলাচলের জন্য একদিনে তিনবার এসএমএস করে বাইরে যাওয়ার সুযোগ পাবে।

২. রাত দশটা থেকে সকাল ছয়টা পর্যন্ত কারফিউ থাকবে।

ধর্মঃ
১.গির্জা এবং অন্যান্য উপাসনালয়ে প্রার্থনা করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে তবে ১০জনের বেশি লোক থাকতে পারবে না।
২. বিবাহ, এবং জানাজায় পূর্বের নিয়ম বা ডিগ্রী থাকবে ১ লা জুন পর্যন্ত।

১লা জুন থেকে গির্জা এবং অন্যান্য সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ে প্রার্থনার জন্য অনুমতি দেওয়া হবে।

ব্যক্তিগত ফিটনেসঃ
১.উন্মুক্ত অঞ্চল, এবং পথে এক সংগে দুজনের বেশি অনুশীলন করতে পারবে না। তবে
অপ্রাপ্ত বয়সের শিশুরা সীমাবদ্ধতার বাইরে।

২.পার্ক এবং শিশুপার্ক বন্ধ থাকবে।

খেলাধুলাঃ
১. ৪ মে থেকে উচ্চ পারফরম্যান্স অ্যাথলিটদের জন্য খেলাধুলার সুযোগ থাকবে।

২.১৮ই মে থেকে দলের প্রশিক্ষণের জন্য অনুমতি দেওয়া হবে।

একুশে মে থেকেঃ
১.চলাফেরার জন্য সমস্ত প্রতিবন্ধকতা প্রত্যাহার করা হবে।
২.পার্ক , খোলা অঞ্চল,মেরিনা, খেলাধুলার জায়গায় যেতে পারবে তবে ১০জনের অধিক নয়।
৩.শ্রম মন্ত্রনালয় দ্বারা নির্দিষ্ট ক্যাটারিং স্থাপনাগুলি পুনরায় খোলা রাখা যাবে।
৪. সেলুন,এবং বিউটিশিয়ানদের প্রতিষ্ঠান খোলা যাবে।

১ লা জুনঃ
১. জাহাজে যাত্রী ওঠানামা বাদে পুরো বন্দরগুলি সম্পূর্ণ কাজ শুরু করবে
২.গ্রন্থাগার জাদুঘর, প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহাসিক স্থানগুলি চালু করা হবে
৩.বেটিং শপগুলো খোলা রাখা যাবে।

এদিকে সাইপ্রাসে ২৯শে এপ্রিল (বুধবার) পর্যন্ত মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮৪৩জন। মোট মারা গেছেন ১৫জন এবং সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ১৪৮জন।

Related Posts

Next Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

I agree to the Terms & Conditions and Privacy Policy.

ফেসবুকে ইউরোপ বাংলা