Friday, এপ্রিল ১২, ২০২৪

দেশে আটকে পড়া ব্রিটেনে কর্মরত বাংলাদেশীদের ফেরানো উদ্যোগ

 

আব্দুল হান্নান, লন্ডন থেকে

বৃটেন থেকে বাংলাদেশে বেড়াতে যাওয়া ব্রিটিশ নাগরিকদের ফিরিয়ে আনতে প্রথম দফায় ৪টি ও পরবর্তীতে আরও ৫টিসহ মোট ৯টি চার্টার্ড ফ্লাইটের ব্যবস্থা করা হলেও এতে কেবল যারা ব্রিটিশ পাসপোর্টধারী তারাই আসার সূযোগ পাচ্ছেন। কিন্তু যারা বাংলাদেশী পাসপোর্ট নিয়ে বেড়াতে গেছেন তারা আসতে পারছেন না। এ বিশেষ ফ্লাইটগুলির ব্যবস্থা করছে ঢাকাস্থ ব্রিটিশ হাই কমিশন।

বৃটেনের বৈধ বাংলাদেশীরা ব্রিটিশ পাসপোর্ট না নিয়েও বাংলাদেশী পাসপোর্টে রেসিডেন্স পারমিট লাভের মাধ্যমে ব্রিটিশ পাসপোর্টধারীদের মত সব ধরনের সূযোগ-সুবিধা ভোগ করে থাকেন। তাই করোণা ভাইরাস ‘কভিড ১৯’ এর দূর্যোগপূর্ণ মুহুর্তেও তারা ব্রিটিশ সরকার কর্তৃক সমান সূযোগলাভ করবেন-এমনটাই প্রত্যাশা বাংলাদেশী পাসপোর্ট নিয়ে বাংলাদেশে আটকেপড়া যাত্রীদের। কারণ তাদের অনেকেই বৃটেনে চাকুরি করেন, আবার অনেক বয়স্ক ব্যক্তি ঔষদপত্রের সল্পতায় রয়েছেন।

এ ব্যাপারে তাদের ধারনা ব্রিটিশ বাংলাদেশী এমপি, লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন এবং বৃটেনের হোম অফিসের সহায়তায় তারা সুফল পেতে পারেন। যা হলে ঢাকাস্থ ব্রিটিশ হাই কমিশন ফিরে আসার ব্যাপারে অন্যান্যদের সাথে তাদেরও ব্যবস্থা হতে পারে।

এমতাবস্থায় মানবাধিকার সংগঠন ‘হিউম্যান রাইটস এন্ড পীস ফর বাংলাদেশ ইউকে এর প্রেসিডেন্ট মোঃ রহমত আলী ও জেনারেল সেক্রেটারী কাউন্সিলর আয়াস মিয়া বাংলাদেশ থেকে ব্রিটিশ নাগরিকদের বৃটেনে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে যে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে সেজন্য বৃটেনের সরকার ও ঢাকাস্থ ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটর্টন ডিকসন এর প্রতি ধন্যবাদ জানান। সাথে সাথে সেখানে অবস্থানরত বাংলাদেশী পাসপোর্টধানীদের ব্যাপারেও বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিকোন থেকে বিবেচনা করে তাদের ফিরে আসার ব্যাপারে সূযোগদানের আহ্বান জানিয়েছেন।

স্মরণ করা যেতে পারে যে, গত ২১, ২৩, ২৫ ও ২৬ এপ্রিল চারটি ফ্লাইট এসেছে এবং আগামী ২৯ এপ্রিল ১, ৩, ৫, ও ৭ মে যথাক্রমে ঢাকা ও সিলেট থেকে এ বিশেষ ফ্লাইটগুলি বৃটেনে আসবে।

ইউরোপ বাংলা

ইউরোপ বাংলা

একজন ফ্রিল্যান্স রাইটার, ব্লগার, এডুকেশনাল কনসালট্যান্ট, ক্যারিয়ার কাউন্সিলর, উদ্যোক্তা।

Related Posts

Next Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

I agree to the Terms & Conditions and Privacy Policy.

ফেসবুকে ইউরোপ বাংলা