Wednesday, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২৪

শহিদ মিনারে গাজী মাজহারুল আনোয়ারকে সর্বস্তরের শ্রদ্ধা

ইউরোপ বাংলা ডেস্ক : বহু কালজয়ী গানের স্রষ্টা গাজী মাজহারুল আনোয়ারের মরদেহ সর্বস্তরের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য বেলা ১১টায় কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে নেওয়া হয়। শহিদ মিনারে এই মুক্তিযোদ্ধাকে ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে সংস্কৃতি অঙ্গন ও সাধারণ মানুষেরা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

শহিদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন আওয়ামী লীগের পক্ষে অসিম কুমার উকিল, আফজাল হোসেন, বিএনপির পক্ষ থেকে অ্যাডভোকেড ছালাম, মীর সরাফত আলী সফু, সেক্টর ফোরাম, বাংলাদেশ মিউজিক ফোরাম, জাসাস, চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি, গীতিকার সংঘ। এ ছাড়া সাবিনা ইয়াসমিন, শেখ সাদি খান, মনির খান, নকিব খান, কুমার বিশ্বজিৎ, মীর্জা আব্দুল খালেকসহ অনেকে।

শ্রদ্ধা জানানো শেষে গাজী মাজহারুল আনোয়ারের মরদেহ নেওয়া হয় তার দীর্ঘদিনের কর্মস্থল বিএফডিসিতে। সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তাঁর প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। বাদ আসর গাজী মাজহারুল আনোয়ারের মরদেহ রাখা হবে গুলশানের আজাদ মসজিদে। সেখানে অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় জানাজা। এরপর বনানী কবরস্থানে তার মা খোদেজা বেগমের কবরের পাশে তাকে সমাহিত করা হবে।

গাজী মাজহারুল আনোয়ারের জানাজা ও দাফনে বিলম্ব হওয়ার কারণ তার মেয়ে দিঠি আনোয়ার। তিনি যুক্তরাষ্ট্র সফরে ছিলেন। শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) দুবাইয়ের উদ্দেশে রওয়ানা দেন। আজ বিকেল বা সন্ধ্যার মধ্যে তার ঢাকায় এসে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গাজী মাজহারুল আনোয়ার ১৯৪৩ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লার দাউদকান্দি থানার তালেশ্বর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬৪ সাল থেকে রেডিও পাকিস্তানে গান লেখা শুরু করেন তিনি। পাশাপাশি বাংলাদেশ টেলিভিশনের জন্মলগ্ন থেকেই নিয়মিত গান ও নাটক রচনা করেন। চলচ্চিত্রের জন্য প্রথম গান লেখেন ১৯৬৭ সালে, আয়না ও অবশিষ্ট চলচ্চিত্রের জন্য। গানের পাশাপাশি চলচ্চিত্র নির্মাণ ও চিত্রনাট্য রচনা করেও সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। তার মৃত্যুতে দেশের শোবিজ অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Related Posts

Next Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

I agree to the Terms & Conditions and Privacy Policy.

ফেসবুকে ইউরোপ বাংলা