Friday, এপ্রিল ১২, ২০২৪

মাঙ্কিপক্সে স্পেনে ২৪ ঘণ্টায় ২ জনের মৃত্যু

ইউরোপ বাংলা ডেস্ক : ইউরোপে চলমান মাঙ্কিপক্স প্রাদুর্ভাবে স্পেনে প্রথম একজনের মৃত্যুর ২৪ ঘণ্টা না যেতেই দেশটিতে এই ভাইরাস আরও একজনের প্রাণ কেড়েছে। মাঙ্কিপক্সের উৎপত্তিস্থল আফ্রিকার বাইরে স্পেন ছাড়াও ব্রাজিলে একজন মারা গেছেন এই ভাইরাসে।

শনিবার স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দেশের ৩ হাজার ৭৫০ জন রোগীর মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১২০ জন এবং মারা গেছেন দু’জন। দ্বিতীয় রোগীর মৃত্যুর তারিখ জানানো হয়নি। শুক্রবার দেশটিতে মাঙ্কিপক্সে প্রথম একজনের প্রাণহানির তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

মৃত্যুর কারণ জানতে তদন্ত করা হবে বলে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছে স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জরুরি ও সতর্কতা সমন্বয় কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, স্পেনে এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ২৯৮ জন মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়েছেন। বিশ্বে যে কয়েকটি দেশে মাঙ্কিপক্সে সবচেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন, তার মধ্যে স্পেন অন্যতম।

এর আগে, শুক্রবার ব্রাজিলে প্রথম একজন রোগী মাঙ্কিপক্স ভাইরাসে মারা গেছেন বলে ঘোষণা দেওয়া হয়। তবে ব্রাজিল কর্তৃপক্ষ বলেছে, মৃত রোগী অন্যান্য গুরুতর অসুস্থতা ভুগছিলেন।

ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের কারণে মাঙ্কিপক্স ভাইরাস নিয়ে গত ২৩ জুলাই বিশ্বজুড়ে জরুরি স্বাস্থ্য সতর্কতা জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সংস্থাটির জরুরি কমিটির দ্বিতীয় বৈঠকে মাঙ্কিপক্স ভাইরাস নিয়ে বৈশ্বিক সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সতর্কতা জারির সিদ্ধান্ত হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক টেড্রোস আধানম গেব্রেইয়েসুস বলেছেন, চলমান প্রাদুর্ভাবে সবচেয় বেশি সংক্রমণ ইউরোপে দেখা যাচ্ছে। মে মাসের শুরুর দিকে মাঙ্কিপক্স প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর বিশ্বের মোট রোগীর প্রায় ৭০ শতাংশই ইউরোপের। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ৭৮টিরও বেশি দেশে প্রায় ১৮ হাজার মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

১৯৭০ সালের পর থেকে আফ্রিকার ১১ দেশে মাঙ্কিপক্স সংক্রমণের খবর পাওয়া যায়। ২০১৭ সালের পর নাইজেরিয়ায় এবার সবচেয়ে বেশি এ রোগের প্রকোপ দেখা গেছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, সক্রিয় ফুসকুড়ি আছে এমন ব্যক্তির ত্বকের সাথে অন্য কারও ত্বকের সংস্পর্শের মাধ্যমে বর্তমানে মাঙ্কিপক্সের প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ছে। একবার কারও সংক্রমণ শনাক্ত হয়ে গেলে তা যাতে অন্যদের শরীরে না ছড়ায় সেজন্য এর বিস্তারের লাগাম টানতে হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক মার্টিন হির্সচ বলেন, কোভিড-১৯ শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এবং এটি অত্যন্ত সংক্রামক। কিন্তু মাঙ্কিপক্সের ক্ষেত্রে এমন ঘটবে না বলে মনে হচ্ছে।

Related Posts

Next Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

I agree to the Terms & Conditions and Privacy Policy.

ফেসবুকে ইউরোপ বাংলা