Tuesday, ডিসেম্বর ৫, ২০২৩

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের শোক

ইউরোপ বাংলা ডেস্কঃ যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও দৈনিক যুগান্তরের প্রতিষ্ঠাতা বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন স্পেনে গণমাধ্যমের প্রতিনিধিত্বশীল সংগঠন স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ।

পৃথক বিবৃতি ও শোকবার্তায় স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাহাদুল সুহেদ ও সাধারণ সম্পাদক আফাজ জনি গভীর দুঃখ ও শোক প্রকাশ করেছেন।এক যৌথ শোকবার্তায় তারা বলেছেন, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম ছিলেন একজন সফল মানুষ। তিনি যমুনা গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করে এশিয়ার সবচেয়ে বড় শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্ক, নির্মাণাধীন মেরিয়টস হোটেলসহ বস্ত্র, ওভেন গার্মেন্টস, রাসায়নিক, চামড়া, মোটরসাইকেল, বেভারেজ টয়লেট্রিজ, আবাসন নির্মাণ এবংইলেকট্রনিকস সামগ্রীসহ বিভিন্ন খাতে ব্যবসা সম্প্রসারিত করে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রেখেছেন। একই সঙ্গে দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশনের মতো পাঠক/দর্শক নন্দিত গণমাধ্যম পরিচালনা করেছেন। নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে যে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে, তা সহসা পূরণ হওয়ার নয়। তার মৃত্যুতে জাতি একজন সফল শিল্প উদ্যোক্তাকে হারাল।

আরো পড়ুন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের শোক

এ ছাড়া ও পৃথক পৃথক শোকবার্তায় শোক প্রকাশ করেছেন সংগঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি বনি হায়দার মান্না, সাংগঠনিক সম্পাদক লোকমান হোসেন, কোষাধ্যক্ষ ফয়জুল হক রানা, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শিপলু নিয়াজী, সাহিত্য সম্পাদক জামিলা করিম, মহিলা সম্পাদক তারিনা জামান খান কাকন, প্রচার সম্পাদক লায়েবুর রহমান, কার্যকরী সদস্য মিরন নাজমুল, তুতিউর রহমান, কবির আল মাহমুদ, সাইফুল আমিন, মোশতাক আলী, মো. ছালাহ উদ্দিন, সালেহ আহমদ সোহাগ, জান্নাতুল ফেরদৌস নিগার।

পৃথক পৃথক বিবৃতিতে তারা মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের মৃত্যু শুধু তাঁর পরিবার নয়,পুরো জাতির জন্য বড় ক্ষতি।দেশ ও দশের জন্য তাঁর অবদান মানুষ কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ রাখবে।শোকবার্তায় সবাই মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন ও শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

কবির আল মাহমুদ, স্পেন

আরও খবর পড়ুন:

Related Posts

Next Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

I agree to the Terms & Conditions and Privacy Policy.

ফেসবুকে ইউরোপ বাংলা